BMBF News

ঢাকা ১৩ আসনে প্রচারণায় ব্যস্ত আওয়ামী লীগ সহ অন্যান্য প্রার্থীরা

১০

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৩ আসনে ভোটার উপস্থিতি বাড়ানোর দিকে মনোযোগ দিয়েছেন প্রার্থীরা। তারা মোহাম্মদপুর, আদাবর ও শেরেবাংলা নগর থানার একাংশ নিয়ে গঠিত আসনটির নির্বাচনি এলাকাগুলোতে নিয়মিত গণসংযোগ করছেন। বিগত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসনে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল কম।
তবে এবার জাতীয় শ্রমীক-লীগের উদ্বেগে ৩১ নং ওয়ার্ডের ভোটারদের উৎসাহ যেন ক্রমে বেড়েই চলছে।
বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর বর্জনের ফলে এবারের নির্বাচনেও ভোটার উপস্থিতি একটি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আসনটির ছয়জন প্রার্থী মাঠে রয়েছেন। এ ক্ষেত্রে স্থানীয় ভোটারদের প্রধান আকর্ষণ হতে পারেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।
তিনি এর আগে ঢাকা-১৩ আসনে দুবারের এমপি ছিলেন। নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী নানক সমর্থকরা ভোট দিতে কেন্দ্রে আসবেন বলে মনে করেন স্থানীয় নেতা-কর্মীরা।
ঢাকা-১৩ আসনে নির্বাচনি প্রচারেও এগিয়ে রয়েছেন নানক। আসনটির প্রতিটি অলিগলিতে জাতীয় শ্রমিক লীগের উদ্যোগে তার পোস্টারে ছেয়ে গেছে। প্রচারের প্রথম দিন থেকে বিভিন্ন যানবাহনে করে মাইকিং চলছে তার পক্ষে।
লিফলেট বিতরণ করছেন প্রার্থী ও জাতীয় শ্রমিক-লীগ সহ তার সমর্থকরা। ভোটারদের ঘরে গিয়ে কেন্দ্রে এসে ভোট দেওয়ার আহ্বানও জানাচ্ছেন জাতীয় শ্রমিক-লীগ সহ নেতারা।
তবে আসনটিতে বাকি পাঁচজন নির্বাচন করলেও উল্লেখযোগ্যভাবে প্রচার চালাতে দেখা যাচ্ছে না তাদের।
ঢাকা-১৩ আসনে নৌকার প্রার্থী নানক ছাড়াও লড়ছেন বাংলাদেশ তরীকত ফেডারেশনের কামরুল হাসান (ফুলের মালা), বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের জাফর ইকবাল (মোমবাতি), বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের জাহাঙ্গীর কামাল (টেলিভিশন), বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তি জোটের মো. শাহাবুদ্দিন (ছড়ি) এবং বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির সোহেল সামাদ (একতারা)।
তবে আসনটির বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখা যায়, উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় জাতীয় শ্রমিক-লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক শাহিন আহমেদসহ  ছাত্রলীগ, যুবলীগ, মহিলা-লীগ ও মুল-লীগ সহ নির্বাচনি কর্মী-সর্মথকদের সঙ্গে নিয়ে প্রচার চালাচ্ছেন নৌকার প্রার্থী জাহাঙ্গীর কবির নানক।

রবিবার সকাল দশটা মোহাম্মদপুর টাউন হল এর সামনে জাতীয় শ্রমিক-লীগ সহ ৩১ নং ওয়ার্ডে সকাল সাড়ে দশটা থেকে বারোটা পর্যন্ত, রাজধানী মোহাম্মদপুর টাউন হলের সামনে থেকে। “আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গীর কবির নানক” সলিমুল্লা রোড দিয়ে নুরজাহান রোড হয়ে তাজমহল রোড ঘুরে কাজী নজরুল ইসলাম সড়ক দিয়ে জাকির হোসেন রোড হয়ে পুনরায় টাউন হল সামনে এসে মিছিলটি সমাপ্ত ঘোষণা করেন।
এ সময় কয়েক দফা নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করেন তিনি। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, আগামী ৭ জানুয়ারি যে ভোট, এই ভোটের দিন এই এলাকার মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোটকেন্দ্রে যাবে এবং ভোট দেবে। সবাইকে ভোটের মাঠে সহিংসতা এড়িয়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি সবাইকে অনুরোধ করব, আবেদন জানাব অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ ও সৌহার্দ্যপূর্ণভাবে নির্বাচন করার জন্য। যদি কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে তাহলে প্রচলিত আইনে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে, একইভাবে সাংগঠনিকভাবেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ ঢাকা-১৩ আসনের সাবেক এমপি নানক বলেন, ‘জনগণ অতীতের মতো এবারও নৌকায় ভোট দিয়ে আমাকে বিজয়ী করবে, এই বিশ্বাস আমার আছে।’
এ ছাড়া ঢাকা-১৩ আসনে মোমবাতি প্রতীকের প্রার্থী বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের জাফর ইকবাল নান্টুর পক্ষে মাইকিং করতে দেখা গেছে। শ্যামলির রিং রোড এলাকায় এই প্রার্থীর পোস্টারও লক্ষ্য করা গেছে। বাকি প্রার্থীদের কোনো তৎপরতা চালাতে দেখা যায়নি।
তুলনামূলক কম প্রচারের কারণ জানতে চাইলে জাফর ইকবাল নান্টু দৈনিক দেশবনীকে বলেন, ‘টিপটিপ করে প্রচার চালাচ্ছি। যেহেতু ছোট দলের ছোট নেতা, তাই নিজেই ভোটারদের ঘরে ঘরে যাচ্ছি। কেন্দ্রে এসে ভোট দিতে বলছি।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.