BMBF News

বার্ষিক বেতন ২০ শতাংশ বৃদ্ধি চায় সরকারি কর্মচারীরা

১৪
নিজস্ব প্রতিবেদক

 

বার্ষিক বেতন ২০ শতাংশ বৃদ্ধির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী জাতীয় পরিষদ। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে এই দাবি জানায় সংগঠনটি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. আকতার হোসেন।
এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ১৭-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী সমিতির সভাপতি ও এই সংগঠনের উপদেষ্টা মোহাম্মদ আলী, বাংলাদেশ সরকারি গাড়িচালক সমিতির সভাপতি ও এই সংগঠনের সহ-সভাপতি মো. আব্দুর রহিম হাওলাদার রানা, বাংলাদেশ সচিবালয় কর্মকর্তা-কর্মচারী ঐক্য পরিষদের মহাসচিব ও এই সংগঠনের সহ-সভাপতি মো. রুহুল আমিন, সহ-সভাপতি জামশেদ আলম, সহ-সভাপতি মুহাম্মদ খলিলুর রহমান ভূঞা, বাংলাদেশ ১৭-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও এই সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক (১ নাম্বার) মো. আবু সায়েম প্রমুখ।
সাধারণ সম্পাদক মো. আকতার হোসেন বলেন, আমরা আশা প্রকাশ করছি স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর সুযোগ্য কন্যা বিশ্ব মানবতার আলোকবর্তিকা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা জরুরি ভিত্তিতে কর্মচারী নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রদানের সুযোগ দিবেন এবং কর্মচারীদের যৌক্তিক দাবিসহ ৯ম পে-স্কেল বাস্তবায়ন করবেন। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে কর্মচারী প্রতিনিধিদলের ফলপ্রসূ আলোচনা এবং প্রতিমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি মোতাবেক আমাদের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি আগামী ২৬ মে ২০২৩ তারিখের মহাসমাবেশ স্থগিত করা হলো।
এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ ১৭-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও এই সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক (১ নাম্বার) মো. আবু সায়েম বলেন, আমি আমার সংগঠন নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেছি। বিভাগীয় পর্যায়ে নেতাকর্মীদের সুসংগঠিত করেছি। এখন আমরা সচিবালয়ের সঙ্গে সংযুক্ত হয়েছি। যাতে আমাদের ন্যায় সংগত দাবিগুলো আদায় হয়। আমরা বিশ^াস করি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ পেলেই আমাদের দাবিগুলো পূরণ হবে। ইনশাআল্লাহ।
সংগঠনের সাতদফা দাবিগুলো হলো, সর্বনিম্ন বেতন ২৫ হাজার টাকা করা, ৫০ শতাংশ মহার্ঘ্যভাতা প্রদান, কর্মচারীদের সচিবালয় ও সচিবালয়ের বাইরে এক স্কেল, বার্ষিক বেতন ২০ শতাংশ বৃদ্ধি করা, বিনা সুদের গৃহনির্মাণের সুবিধা, পেনশন কর্তনের হয়রানি বন্ধ, কল্যাণ ট্রাস্ট কমপ্লেক্স নির্মাণ, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ দান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.